খাদ্য নিরাপদ রাখার ৫ চাবিকাঠি - পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা, কাঁচা ও রান্না খাদ্য পৃথক রাখা, ৭০ ডিগ্রী সে. এর বেশি তাপমাত্রায় রান্না করা, রান্না করা খাবার ৫ ডিগ্রী সে. এর নীচের তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করা এবং নিরাপদ খাদ্যোপকরণ ও পানি ব্যবহার করা। নিরাপদ খাদ্য আইন, ২০১৩ মেনে চলুন - উৎকৃষ্ট পদ্ধতিতে খাদ্য উৎপাদন করুন, উৎকৃষ্ট প্রক্রিয়ায় খাদ্য প্রস্তুত করুন ও নিরাপদ খাদ্য বিক্রয় করুন। জীবন ও স্বাস্থ্য সুরক্ষায় নিরাপদ খাদ্য - অনিরাপদ খাদ্যকে না বলুন। ভেজাল ও মেয়াদোত্তীর্ণ খাদ্যদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় করবেন না এবং ছোঁয়াচে ব্যাধিতে আক্তান্ত ব্যক্তি দ্বারা খাদ্যদ্রব্য প্রস্তুত, পরিবেশন বা বিক্রয় করবেন না। মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর রাসায়নিক দ্রব্য যেমন, ক্যালসিয়াম কার্বাইড, ফরমালিন, ডিডিটি ও পিসিবি মিশ্রিত খাদ্যদ্রব্য বা খাদ্যোপকরণ মজুদ, বিপণন বা বিক্রয় করবেন না।

বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ এবং জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা এর যৌথ উদ্যোগে ২-৩ জুলাই ২০১৭ দুই দিনব্যাপি "খাদ্য ব্যবসা অপারেটরদের জন্য স্বাস্থ্যকর এবং স্যানিটেশন” শীর্ষক এক প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ এবং জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা এর যৌথ উদ্যোগে ২-৩ জুলাই ২০১৭ দুই দিনব্যাপি এক প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়। উক্ত প্রশিক্ষণের শুভ উদ্বোধন করেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব জনাব মোঃ কায়কোবাদ হোসেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান জনাব মোহাম্মদ মাহফুজুল হক। প্রশিক্ষণে কর্তৃপক্ষের সদস্যগন, সচিব, পরিচালকবৃন্দসহ অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। বিভিন্ন খাদ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান হতে আগত ৪৭ জন প্রতিনিধি উক্ত প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন। প্রশিক্ষণে উৎপাদিত খাদ্যের গুণগতমান রক্ষায় খাদ্য ব্যবসায় স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ সংরক্ষণ ও প্রক্রিয়াকরণ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাদি সম্পর্কে ধারণা প্রদান করা হয় এবং প্রশিক্ষণ শেষে প্রশিণার্থীদেরকে সনদপত্র বিতরণ করা হয়।

You are here: Home Notification Sample Data-Articles বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ এবং জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা এর যৌথ উদ্যোগে ২-৩ জুলাই ২০১৭ দুই দিনব্যাপি "খাদ্য ব্যবসা অপারেটরদের জন্য স্বাস্থ্যকর এবং স্যানিটেশন” শীর্ষক এক প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়।